শিক্ষা

শিক্ষা


একসময় দহগ্রামে শিক্ষার হার খুবই খারাপ ছিল । অধিকাংশ মানুষ ছিল অশিক্ষিত। গুটি কয়েক পরিবারের সদস্য শিক্ষিত ছিল । বাংলাদেশের উন্নয়নের সাথে তাল মেলাতে এখন দহগ্রামে শিক্ষিতের হার অনেক । এমনও অনেক পরিবার আছে যাদের আর্থিক অবস্থা খুবই খারাপ, কিন্তু তাদের সন্তানরা কষ্ট করে লেখাপড়া চালাচ্ছে ।

বর্তমান দহগ্রামে শিক্ষিতের হার প্রায় ৪৫% । এখানে তেমন কোন ভালো স্কুল নেই তদুপরি এখানকার ছেলেমেয়েরা নিয়মিত লেখাপড়া করে মনোযোগের সহিত । এখানে উচ্চ-বিদ্যালয় আছে ১টি, প্রাথমিক বিদ্যালয় আছে ৪টি, কমিউনিটি প্রাথমিক বিদ্যালয় আছে ১টি । মোটামুটি ভাল মানের মাদ্রাসা আছে কয়েকটি ।

তার মধ্যে,

  • এবতেদায়ী মাদ্রাসা ১ টি ।
  • দাখিল মাদ্রাসা ১ টি ।
  • ফোরকানিয়া মাদ্রাসা ১ টি ।

প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শাখার বিদ্যালয় ও মাদ্রাসা থাকলেও এখানে কোন কলেজ না থাকায় অধিকাংশ ছাত্র-ছাত্রীদের বাড়ি হতে ২০ থেকে ৩০ কিমি. দূরে গিয়ে  কলেজ করতে হয় ।

সচ্ছল পরিবারের সদ্যস্যরা বাইরে থেকে লেখাপড়া করতে পারে কিন্তু, দহগ্রামের অধিকাংশ পরিবাই গরীব, তাই তারা অনেক কষ্টকরে সাইকেল চালিয়ে কিংবা বিভিন্ন যানবাহনে যাতায়াত করে । অনেকক্ষেত্রে দেখা যায় আর্থিক অনটনের কারণে অনেক ছেলেমেয়ের লেখাপড়া বন্ধ হয়ে যায় ।

অনেক প্রতিবন্ধকতার মাঝেও এগিয়ে চলছে শিক্ষিত দহগ্রাম গড়ার কাজ।।